1. jagannathpurerkhabor@gmail.com : admin :
  2. gobindo83@gmail.com : Gobindo Deb : Gobindo Deb
  3. jamaluddibela1983@gmail.com : Jamal Uddin Belal : Jamal Uddin Belal
১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ| ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ| গ্রীষ্মকাল| শুক্রবার| সন্ধ্যা ৭:১১|

শ্যামাসুন্দরী খালের জীবন ফেরাতে পরিচ্ছন্নতা অভিযান শুরু

রিপোর্টার
  • আপডেটের সময় : শনিবার, মে ১১, ২০২৪,
  • 7 দেখা হয়েছে

রংপুর প্রতিনিধি ||

শ্যামাসুন্দরী খালের একটি অংশ পরিষ্কার করছেন বিডিক্লিনের সদস্যরা

আবর্জনার ভাগাড়ে পরিণত শ্যামাসুন্দরী খাল এখন মশার আবাসস্থল। বর্ষা মৌসুমে জলাবন্ধতার কারণে এই খালের আশপাশে বসবাসকারীদের প্রতিবছর পড়তে হয় চরম ভোগান্তিতে। মরণ দশা থেকে খালটিকে পুররুজ্জীবিত করতে পরিষ্কার ও জনসচেতনতামূলক প্রচারণা শুরু করেছে রংপুর সিটি করপোরেশন (রসিক)। এরই অংশ হিসেবে বিডিক্লিন নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের এক হাজার সদস্য শ্যামাসুন্দরী খালটি পরিষ্কার করার কাজে অংশ নিয়েছেন।

 

শনিবার (১১ মে) সকালে রংপুর নগরীর স্টেডিয়াম মাঠে শ্যামাসুন্দরীকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম এবং শপথ বাক্য পাঠ করান রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা। পরে খালের ৫ কিলোমিটার অংশ জুড়ে শুরু হয় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম। সিটি করপোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা শাখার পরিচ্ছন্নতাকর্মীরাও এই কাজে অংশ নেন।

সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান বলেন, পরিচ্ছন্নতার সুফল সম্পর্কে নগরবাসীকে বেশি করে সচেতন করতে সবাইকে কাজ করতে হবে। শ্যামাসুন্দরী খালের আশপাশে বসবাসরত নগরবাসীকে সচেতন হতে হবে। খাল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমের পর নতুন করে ময়লা ফেলা এবং পয়ঃনিষ্কাশনের জন্য অবৈধ স্যুয়ারেজ সংযোগ প্রদানকারীদের বিরুদ্ধে রসিকের পক্ষ থেকে নিয়মিত তদারকি কার্যক্রম চলমান থাকবে। প্রয়োজনে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনাসহ অন্যান্য আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনি ইশতেহারে গ্রিন সিটি এবং ক্লিন সিটি ছিল অন্যতম এজেন্ডা। এরই ধারাবাহিকতায় শ্যামাসুন্দরী খালের পাঁচ কিলোমিটার (চেকপোস্ট হতে শাপলা চত্বর) ময়লাযুক্ত মাটি পুনঃখনন ও অপসারণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। শ্যামাসুন্দরী কেবল রংপুর নয়, সমগ্র দেশের জন্যই একটি বড় সম্পদ। এই সম্পদ রক্ষা করা সবার দায়িত্ব। শ্যামাসুন্দরী খালকে পুনরুজ্জীবিত এবং সৌন্দর্যবর্ধনের যে প্রয়াস চলছে, তার সফলতায় রংপুরের প্রতিটি নাগরিকের সহযোগিতা প্রয়োজন।
আগামী তিন মাসের মধ্যে শ্যামাসুন্দরী খাল খনন ও সংস্কারসহ আধুনিকায়নে একটি পূর্ণাঙ্গ প্রজেক্ট ডিজাইন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন- রংপুরের বিভাগীয় কমিশনার জাকির হোসেন। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- রংপুর রেঞ্জ ডিআইজি আব্দুল বাতেন। রংপুর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে ফাতিমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অন্যদের মধ্যে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. মনিরুজ্জামান, জেলা প্রশাসক মোবাশ্বের হাসান ও পুলিশ সুপার ফেরদৌস আলী চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।
জানা গেছে, প্রায় ১৫ দশমিক ৮০ কিলোমিটার দীর্ঘ এবং স্থানভেদে ২৩ থেকে ৯০ ফুট প্রশস্ত শ্যামাসুন্দরী খালটি রংপুর সিটি এলাকার উত্তর পশ্চিমে কেল্লাবন্দস্থ ঘাঘট নদী থেকে শুরু হয়ে নগরীর সব পাড়া-মহল্লার বুক চিরে ধাপ পাশারিপাড়া, কেরানীপাড়া, মুন্সীপাড়া, ইঞ্জিনিয়ারপাড়া, গোমস্তাপাড়া, সেনপাড়া, মুলাটোল, তেঁতুলতলা শাপলা চত্বর, নূরপুর, বৈরাগিপাড়া হয়ে মাহিগঞ্জ সাতমাথা রেলগেট এলাকায় কেডি ক্যানেল স্পর্শ করে খোকসা ঘাঘট নদীতে মিশেছে।

দীর্ঘদিন ধরে দখল আর দূষণে ভরা শ্যামাসুন্দরী খাল এখন নগরবাসীর দুর্ভোগের অন্যতম কারণ হিসেবে দেখা দিয়েছে। বিডি ক্লিনের একদিনের এই উদ্যোগে লজিস্টিক সাপোর্ট হিসেবে ২০ লাখ টাকা সহায়তা দিয়েছে সিটি কর্পোরেশন ও বিভাগীয় প্রশাসন।

প্রসঙ্গত, ১৮৯০ সালে বায়ুবাহিত রোগ ও জলাবদ্ধতা থেকে নিস্তার পেতে রংপুর শহরের ভেতর দিয়ে ১৬ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের শ্যামাসুন্দরী খাল খনন করেছিলেন রাজা জানোকি বল্লভ সেন।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরণের আরো খবর
  • © All rights reserved © 2024
Design and developed By: Syl Service BD